দুপুর ২:২১ ; শনিবার ; ২৮শে নভেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ
facebook Youtube google+ twitter
×




কলামিষ্ট রাজু লস্কর’র নতুন লেখনীতে….রাজনীতি বনাম বিজ্ঞাপন

বরিশাল পিপলস
৪:৫৪ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ১১, ২০২০

রাজু লস্কর :

ছোট বেলায় দেখতাম লোকজন মিছিলে বেশ জোড়ে জোড়ে চিৎকার করে শ্লোগান দিত। আর হন হন করে হাটত। আমরা দূর থেকে তাদের দেখতাম আর আফসুস করতাম। কবে এই বীরদের মত মিছিল দিতে পারব!! একটু যখন বড় হতে শুরু করলাম তখন একদিন মিছিলের পূর্বে । যখন মিছিলের জন্য লোকেরা কোন নির্দিষ্ট স্থানে মিলিত হয়। সেখানে উকি ঝুকি মারতে শুরু করলাম । কয়েক জনের চোখে পরলে তারা আমাদের মিছিলে যাওয়ার জন্য বলে । প্রথমে আমরা রাজি হলাম না, বাবা যদি শুনতে পায় তাহলে মার দিবে এই ভয়ে। মিছিলের লোকেরা আমাদের মুড়ি, বাতাসা খাওয়ানোর প্রস্তাব দিলে পরে আমরা রাজি হই। কি বলতে হবে জিজ্ঞাস করলে ,তারা আমাদের যা শিখিয়ে দিল তাতে মনে হল। কোন একজন মহৎ লোকের গুনগান গাইতে হবে । বেশ মিছিল দিতে লাগলাম হাটতে হাটতে, না দৌড়াতে দৌড়াতে হাত-পা ব্যাথা হয়ে গেল। মিছিলের শেষে মুড়ি খাওয়ালো কিন্তু বাতাসা আমাদের দিল না । বড়রাই ভাগা-ভাগি করে খেয়ে ফেলল। সবাই চলে গেল বাকি রইল কয়েকজন মাতুব্বররা। বলতে পারেন এরা রইল কেন, হ্যা এটাই প্রশ্ন???একজন বলতে শুরু করল (চুলের হিন্দি ভাষা) —-টাকা দিছে শালায় !! এত কম টাকায় কি মিছিল হয় । আবার (চুলের হিন্দি ভাষা)—রাজনীতি করি । লোক আনতে কি টাকা লাগে শালারা বুঝে না। এরপর যদি বেশি টাকা না দেয় তাইলে ওর ঘুষ্টি————- অন্য দলে যোগ দিব। আমার মাথায় তখন কিছু ধরল না এতক্ষন ভাবলাম এরা সবাই মহা দেশপ্রেমিক । অমুক ভাইকে ভালবাসে তাই এতকষ্ট করে মিছিল দেয় । আমরা মিছিলে বললাম অমুক ভাই ভাল লোক জয়ের মালা তারই হোক,অমুক ভাইয়ের চরিত্র ফুলের মত পবিত্র,আরো কত গুনগান । এখন বুঝলাম এ সবই কেউ আমাদের বলিয়েছে । আমরা বলিনি আমাদের বলানো হয়েছে !!
এখন একটা উদাহরন না দিলে আর চলে না । একবার আমাদের স্কুলে বার্ষিক ক্রীয়া ও পুরুস্কার বিতরনী অনুষ্ঠানে গেলাম । সেখানে দেখলাম একটি ছোট মেয়ে মাটিতে গড়াগড়ি দিচ্ছে আর কান্না করতেছে। কি কারন জানতে চাইলাম । উত্তরঃ- মেয়েটি কে কেন পুরষ্কার দেয়া হয়নি । কেনই বা দিবে সেতো কোন প্রতিযোগিতায় ভাল করতে পারেনি। কি আর করার মেয়েটির মা প্লেট কিনে এনে স্যারদের মাধ্যমে মেয়েটিকে দিল । যাকে বলে সান্তনা পুরষ্কার । এবার আসি কাজের কথায়,আমাদের দেশে অধিকাংশ রাজনীতিবিদরা টাকা দিয়ে মিছিল মিটিং করাচ্ছে। নিজেদের নামে ¯েøাগান দিয়ে জনগনের দৃষ্টি আকর্ষন করছে। পাচ্ছে ব্যাপক জনপ্রিয়তা এমপি,মন্ত্রী হচ্ছে। এক্ষেত্রে কি আমরা তাদের পাওয়া কে সান্তনা পুরষ্কার হিসেবে বলতে পারি না। অবশ্যই পারি, পারি, পারি !!!!
ছোট বেলায় যখন কোন পরীক্ষা দিতাম । পরীক্ষা দিয়ে আসার পথে কেউ কেউ জিজ্ঞাস করত পরীক্ষা কেমন হয়েছে ? আমি উত্তর দিতাম মোটামুটি। আপনারা বলতে পারেন ,কোন সময় কি ভাল হত না? আমার উত্তর মাঝে মাঝে ভাল হত তারপরও বলতাম মোটামুটি। না বলে উপায় নেই । কারন পরীক্ষা ভাল হয়েছে। একথা বলে মায়ের হাতে কম মার খাইনি। মা বলত পরীক্ষা ভাল হয়েছে না খারাপ হয়েছে তা বুঝা যাবে ফলাফল বের হলে। মায়ের সেই কথায় প্রায়ই রাগ করতাম। মনে হত মা আমার স্বাধীনতায় হস্তক্ষেপ করছে। আর নিজে নিজে বলতাম পরীক্ষা ভাল হয়েছে কিন্তুু অন্যের কাছে মিথ্যা বলছি। মা এমন কেন??এ প্রশ্নের উত্তর ছোট বেলা থেকে আজও খুঁজচ্ছি।
কারন যখন বুঝতে শুরু করলাম,জানতে শুরু করলাম। তখন দেখলাম চারপাশের পরিবেশ ভিন্ন । ছোট বেলা থেকে দেখে আসছি অমুক দল আর তমুক দল । এ দু-দলের বাহিরে আর কোন গান নেই। আমরা প্রায়ই টিভিতে অথবা সরাসরি কোন মঞ্চে যখন কোন প্রধানমন্ত্রী বা সরকারি অথবা বিরোধী দলীয় মন্ত্রী, কিংবা কোন এম,পি অথবা কোন চেয়ারম্যানের বক্তৃতা শুনি। তারা কি বলবে তা আমাদের মুখস্ত ও ঠুটস্তো ।যেমন ঃ- আমরা এইটা করেছি,সেইটা করেছি,আমাদের সময়ে দূর্নীতি,সন্ত্রাস,নেই বললেই চলে!!!!!!!!!!!!!!!!!!!!!!! আপনারা জানেন অমুক দল ক্ষমতায় থেকে সব খেয়ে ফেলেছে,সব ঢুবিয়ে দিয়েছে। ওরা খারাপ। ওদের ভোট দিবেন না । আমাদের দিবেন আমরা ভাল , আমরা দুধের ধোঁয়া। পাঠক মহাশয়গন এগুলো শুধু সরকারি দলই যে বলে তা না । বিরধীদল কিংবা অন্য কোন দলও যদি ক্ষমতায় যায় তাহলে তারাও একই ধরনের গান গায়। এটাকে গ্রামের একটি ছোট্ট উদাহরনের সাথে বলা যেতে পারে, “যে-ইই লঙ্কা যায়, সে-ইই হনুমান হয়’’।
তারা মস্ত বড় জ্ঞানী গুনী । তারা তো অবশ্যই সেই মহাবানীর সাথে পরিচিত“আপনারে বড় বলে বড় সেই নয়, লোকে যারে বড় বলে বড় সেই হয়’’। আমার মনে হয় তারা শপথ নিয়েছে। এ রকম বানী তারা ভুলেও মনে রাখবে না। আর যদি কারো মনে থাকে তা চেপে ধরে ডিলিট দিতে বাধ্য করবে। জনগনের জন্য কিছু করলে তা জনগন এমনিতেই দেখতে পায়। ডাক-ঢোল বাঁজানোর কিছুই নেই। বরং এ ধরনের কথায় জনগন প্রচন্ড বিরক্তি বোধ করে।
অ-সস্তি বোধ করে। মনে মনে গালি দেয় আর বলে (শালা কে শয়ের জাগায় হ দিয়ে উচ্চারন করে)—–মঞ্চদিয়ে নাম—-। আর যদি এমন সংবাদ টিভিতে প্রচার হয় । তাহলে সঙ্গে সঙ্গে রিমোর্ট দিয়ে চ্যানেল পালটিয়ে দেয়। দরকার হলে ঝিড় ঝিড় করে আফছা আফছা আসে এমন চ্যানেলে রান্নার অনুষ্ঠান দেখে তবুও গাঁধার ডাক শোনে না।
আমরা আর একটি জিনিস কমন দেখি । কোন নির্বাচনের আগে বা কোন নতুন বছরে কিংবা কোন বিশেষ উৎসবের দিনের আগে। রাস্তার গাছে , দেয়ালে লাগানো থাকে । সৎ,নির্ভীক,দক্ষ,যোগ্য প্রার্থী অমুক ভাই কে……….. মার্কায় ভোট দিন। এলাকার সেবা করার সুযোগ দিন । নিচে লেখা থাকে প্রচারেঃ-…/…./…এলাকার সকল জনগন। আমি বলি এটা জঘন্য মিথ্যা কথা । এটা চিটিং,এটা জালিয়াতি ।এই পোষ্টার কিংবা মাইকিং এর প্রচারের ব্যয় প্রার্থী নিজেই বহন করে থাকে । আপনারা বলতে পারেন কেন ? আমি বলব ঃ-যদি তাই হত তাহলে যারা নির্বাচনে পরাজিত হয় তাদের পোষ্টারেও তো এই কথা লেখা থাকে। তবে জনগন যদি সঙ্গেই থাকত তাহলে সে/তারা পরাজিত হল কেন ? আসল কথা হল ,এই ধরনের লেখা বা কথা রাজনীতিবীদদের উত্তারাধিকার সূত্রে পাওয়া । তারা এটার পরিবর্তন করতে সাহস পান না । যারাই নির্বাচনে দাড়ায় তাদের সকলের পোষ্টারে এটা লেখা থাকে । তাহলে কি আমরা বলতে পারি না রাজনীতিবিদরা নিজের ““ঢোল নিজেরাই বাঁজায়’’’’ । জনগন প্রচারের জন্য এক পয়সাও খরচ করে না । যদি যোগ্য কোন প্রার্থী থাকে তাহলে তার পোষ্টার লাগে না। আমাদের দেশের রাজনীতি এখন ব্যবসায়ীদের হাতে চলে যাচ্ছে। আমরা দেখে থাকি কোন পন্যকে মার্কেটে তুলে ধরতে হয় বিজ্ঞাপনের মাধ্যমে। বিজ্ঞাপন ভিবিন্ন ধরনের হয় । যেমনঃ- রাস্তায় বিল বোর্ড টানিয়ে , প্রিন্ট মিডিয়ার মাধ্যমে বিজ্ঞাপন ছাপিয়ে ,ইলেকট্রনিক্স মিডিয়ায় অডিও,ভিডিওর মাধ্যমে।
এসব বিজ্ঞাপনে পন্যকে সবার সেরা, উন্নত,আধুনিক হিসেবে উপস্থাপন করা হয় । এই সব উপস্থাপনায় কোন কোন কোম্পানীর পন্যের মাননীম্ন হলেও তাকে উকৃষ্ট হিসেবে দেখানো হয়। ফলে ক্রেতারা ওই পন্য কিনে বারবার প্রতারিত হচ্ছে । কিšু‘ তাতেও ক্রেতাদের হুস হোচ্ছে না । কেনই বা হবে তার তো বিজ্ঞাপনে দেখে অমুক সাবান দিলে কালো মানুষ ফর্সা হয়ে যাবে! ,অমুক তেলদিলে মাথায় চুল গজাবে, অমুক কোমল পানীয় খেলে আকাসে উড়া যাবে,সমুদ্র পাড়ি দেয়া যাবে।
একবারও কি আমরা চিন্তা করেছি সাবান দিয়ে কে ফর্সা হয়েছে,তেল দিয়ে কার মাথায় চুল গজিয়েছে, পানী খেয়ে কে কে আকাশে উড়ছে,কে সমুদ্র পাড়ি দিছে।
আসল কথা হল এ গুলো সব মিথ্যা কথা । পন্যের বিক্রি বাড়ানোর জন্য টাকা দিয়ে এসব মিথ্যা কথা বলানো হয়। যদি এটাই হত তাহলে আফ্রিকার মানুষ একটাও কালো থাকতনা। সাবান দিয়ে ফর্সা হয়ে যেত।বেশির ভাগ কোম্পানীর মালিকরা নিজেদের পন্যে প্রচার এভাবেই নিজেরা করছে। অর্থাৎ নিজেদের ঢোল নিজেরাই পেটাচ্ছে। কোন কোন রাজনীতিবিদরা বলতে পারেন “এত বড় কথা রাজনীতি ব্যবসায়ীদের হাতে চলে গেছে মানে, আমারা কি যোগ্য না’’।
এখন আমি পরামর্শ দেব আমাকে দোষ না দিয়ে বরং একটু চিন্তা করে দেখেন। পন্যের বিজ্ঞাপনের সাথে রাজনীতির কোন অ-মিল খুঁজে পান কিনা । উত্তর ঃ- পাবেন না তারাও নিজেদের ঢোল নিজেরা বাঁজায়, আর আপনারাও নিজেদের ঢোল নিজেরা বাঁজান। তবে পার্থক্য একটা রয়েছে পন্যের মালিকরা পন্য ক্রয় করতে জোর জবর ধস্তি করে না । আর আপনারা জোর জবর ধস্তিতো করেনই ,ভয় ,ডর দেখান আর তাতেও কাজ না হলে গুলি মাইসিন ঔষধ খাওয়ান ,ঔষধে না ধরলে মৃত্যু মাইসিন থেরাপি দেন।
আপনারা বলেন এসবের দরকার কি রাজনীতিবিদদের দরকার ক্ষমতায় টিকে থাকা । আমার মনে হয় ভাল কাজ করলে ক্ষমতা তাদের পিছনে দৌড়াবে। তাদের ক্ষমতার জন্য লড়াই করতে হবে না । জনগনের মন জয় করতে মিথ্যা কথা , হিংসাত্বক কার্যক্রম দরকার নেই। দরকার নেই “নিজের ঢোল নিজের পেটানোর”,দরকার নেই রৌপ্য কে স্বর্ণ বলে বিজ্ঞাপন দেয়ার”।
মো.রাজু লস্কর
বানারীপাড়া,বরিশাল।
দুরালাপণী:০১৮৮৭৫৩৯০৯৫

আইন-আদালত, কলাম, মিডিয়া, রাজনীতি, লাইফ স্টাইল, লিড নিউজ




আপনার মতামত লিখুন :




এই বিভাগের আরো সংবাদ




আমাদের ফেসবুক পেজ

সম্পাদক ও প্রকাশক: মাসুদ রানা
ব্যবস্পাপনা সম্পাদক: কামাল সরদার (মুন্না)

ঠিকানা: জাহানারা মঞ্জিল, কবি নজরুল ইসলাম

সড়ক, নথুল্লাবাদ ( বাস-টার্মিনাল’র দক্ষিনপাশে) বরিশাল।
মোবাইলঃ 01718666126
ই-মেইলঃ masud.journalsit24@gmail.com

ই-মেইল: barisalpeoples@gmail.com
টপ
  বাবুগঞ্জে ইয়াবা সেবী পুলিশ সদস্যের নির্যাতনে স্ত্রী হাসপাতালে   করোনা ঠেকাতে বরিশাল জেলা প্রশাসন কঠোর অবস্থানে   Bangladesh plans new pandemic restrictions; no more lock-downs   মহামারী নিয়ন্ত্রণে নতুন পরিকল্পনা ; লকডাউন হবে না বাংলাদেশে   বনেকের জরুরি সভা অনুষ্ঠিত, অনলাইন পত্রিকার রেজিষ্ট্রেশন পেতে সহযোগিতার সিদ্বান্ত   পিরোজপুরে বক্তারা : পুরুষদের সম্পৃক্তকরণের মাধ্যমে নারী ও শিশুর প্রতি সহিংসতা রুখে দেয়া সম্ভব   করোনা প্রতিরোধে বরিশাল মেট্রোপলিটন পুলিশের সচেতনতামূলক র‌্যালি   বরিশালে সুন্দরবন লঞ্চের ছাদে যুবককে কুপিয়ে হত্যা   ক্ষমা চাচ্ছি-আমি মুসলমান, কালীপূজা উদ্বোধন করিনি : সাকিব আল হাসান   বকেয়া বেতনের দাবিতে বরিশাল-ঢাকা মহাসড়ক অবরোধ   জ্ঞানভিত্তিক সমাজ গঠনে মঠবাড়িয়ায় ডিজিটাল পাবলিক লাইব্রেরীর আত্মপ্রকাশ!   বরিশাল মিডিয়ার ভেঙ্গে দেওয়া একটি হাত….   র‌্যাব-৮’র অভিযানে চোরাই গাড়ীসহ ফরিদপুরের সেন্টু গ্রেফতার   ঢকায় T20 ক্রিকেট’র লোগো উন্মোচন করবেন প্রতিমন্ত্রী জাহিদ ফারুক   ‘উপকূল দিবস’ ঘোষণা ও উপকূলীয় অঞ্চল সুরক্ষার দাবিতে পদযাত্রা   কলামিষ্ট রাজু লস্কর’র নতুন লেখনীতে….রাজনীতি বনাম বিজ্ঞাপন   উত্তাপ্ত বরিশালে অর্থনৈতিক নিরাপত্তায় শিল্প পুলিশের দাবি!   বাবুগঞ্জ পাংশা গ্রামের কাঁচা রাস্তায় মানুষের দুর্ভোগ   ঢাকা থেকে বরিশালে এসে ব্যবসায়ী নিখোাঁজ   বরিশালে মুক্তিযোদ্ধার ভুয়া সনদে ব্যাংকে চাকরি